কেন বিভক্ত হলেন মাশরাফি ভক্তরা?



[ad_1]

বাংলাদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে আমূল পরিবর্তন আসছে তারুণ্যের হাত ধরে. আদর্শিক রাজনৈতিক পরিবেশ গঠন করার জন্য ভালো মানুষের রাজন তিতে আসার বিকল্প নেই.

তেমনি নানা জল্পনা কল্পনা শেষে বাংলাদেশের ক্রিকেটের উজ্জল নক্ষত্র মাশরাফি বিন মর্তুজা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে নৌকা নিয়ে অংশ গ্রহন করবেন.

কি কারনে তিনি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন এ বিষয়ে তিনি বিস্তারিত লিখেছেন, নিজের ফেসবুকে. সেখানে তিনি অত্যন্ত সুন্দর-প্রাঞ্জল ভাষায় জানিয়েছেন মূলত সময়ের দাবি ও দেশের জন্যেই তিনি রাজনীতিতে এসেছেন.

তবে মাশরাফির মনোনয়ন তুলার পর থেকে এক বিভক্তি তারি হয়েছিল মাশরাফি ভক্তদের মাঝে. মাশরাফির তার এই পোস্টেই সেসব ভক্তরা নিজেদের অভিব্যক্তি জানিয়েছেন.

মাশরাফির সেই পোস্টে ফারাবি হোসেন নামে একজন ভক্ত মাশরাফির উদ্দেশে লিখেছেন, 'ভাই, পাবলিক এখন আর আপনাকে প্রিয় ম্যাশ বা বস ভাবে না, এখন শুধু ভাবে আপনি একটা হলুদ. হয়তো আপনার জন্য আমার গালি বা খারাপ কিছু আসছে না, বাট এটাও সত্য যে, আপনার জন্য আগের মতো আর আবেগ-ভালোবাসা এখন আর কোনো কিছুই আসে না. ভালো থাকবেন! '

তবে শুভকামনা জানিয়ে সাকিব হাসান সুইম নামে একজন লিখেছেন, 'মাশরাফির রাজনীতির ইনিংস লম্বা হবে, মানবিক মাশরাফির মানবিকতা ছড়িয়ে পড়বে সর্বোত্র, এটাই চাই. মাশরাফি আমাদের গর্ব. এগিয়ে যান. '

আরেকজন লিখেছেন, 'আমার গর্ব হয় এই ভেবে আমি বাংলাদেশের নাগরিক, আমার গর্ব হয় এই ভেবে আমি মাশরাফির বিন মোর্তজা' স্বদেশী. '

হাবিবুল্লাহ মারুফ লিখেছেন, 'মি. (মিস্টার) মাশরাফি আমরা ভাবি সমগ্র দেশের আপনি. আর আপনি হয়ে গেলেন একটা দলের. যে দলের কাহিনী সব জানেন-বোঝেন, তারপরও এতটা সংকীর্ণ মানুসিকতা নিয়ে কীভাবে আপনি মাশরাফি হলেন? আপনি কি মাশরাফি নামের সারে সুবিচার করতে পারেছেন? আফসোস … '

আতিকুর রহমান নাবিল লিখেছেন, 'নড়াইল -২ আসন কে এমনভাবে প্রতিষ্ঠিত করবেন যেন বাকি ২99 আসনের সংসদ সদস্যরা এইটাকে মডেল হিসেবে ধরে নিয়ে নিজের এলাকায় ওইভাবে কাজ করতে পারে. ওই আসনগুলোর জনগণ ও যেন তুলনা করে তাদের এমপিদের কার্যক্রম এর সিলতা-ব্যার্থতা হিসাব করতে পারে. শুভকামনা রইলো আপনার জন্য প্রিয় ক্যাপ্টেন. '

আমরাদের যদি চাওয়া থাকে পরিবর্তন আসুক রাজনীতিতে, তবে এখন দি বিভক্তি আমাদের মাঝে?

[ad_2]

Source link